মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনার বৈশিষ্ট্যসমূহ বর্ণনা কর।

February 7, 2021 0 Comments

প্রশ্ন॥ মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনার বৈশিষ্ট্যসমূহ বর্ণনা কর। অথবা, মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনার গুণাবলি আলােচনা কর।

উত্তর :

ভূমিকা : একটি প্রতিষ্ঠানে কতকগুলাে বিভাগ উপবিভাগ থাকে। সেসব বিভাগ বা উপবিভাগগুলাের মধ্যে মানবসম্পদ বিভাগ সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ। অন্যান্য বিভাগের মতাে এ বিভাগও কিছু স্বতন্ত্র বিভাগের অধিকারী। নিম্নে এসব বৈশিষ্ট্যের আলােচনা করা হলাে :

১. জনশক্তির কাম্য ব্যবহার (Optimum Uses of Manpower) : জনশক্তির কাম্য ব্যবহার নিশ্চিত করা মানবসম্পদ ।
ব্যবস্থাপনার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য। এ বিভাগকে বিভিন্ন । কলাকৌশল; যেমন- সঠিক মজুরি কাঠামাে নির্ধারণ, প্রেষণা প্রদান, কার্যসম্পাদনে মানবসম্পদ নীতি নির্ধারক হিসেবে কাজ করে। সাধারণ ব্যবস্থাপনার নীতিনির্ধারণেও এর ভূমিকা রয়েছে। মানবসম্পদ বিভাগ ও সাধারণ বিভাগের নীতিমালার আলােকে।
২. উন্নত শ্রম ব্যবস্থাপনা সম্পর্ক (Improved Labour Management Relation) : প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের জন্য শ্রমিক
কর্মী এবং ব্যবস্থাপনার সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় থাকা অপরিহার্য। আর এ সম্পর্কটি মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনাকে গড়ে তুলতে হয়।
সুতরাং উন্নত শ্রম ব্যবস্থাপনা সম্পর্ক মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনার বৈশিষ্ট্যগুলাের মধ্যে অন্যতম।
৩. কলা ও বিজ্ঞানের সংমিশ্রণ (Mixture of Art and science) : আমরা জানি, মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা মানবসম্পর্কিত
বিষয় এবং মানবসম্পদ নিয়ােগ, নির্বাচন প্রশিক্ষণ ও উন্নয়নের ক্ষেত্রে বৈজ্ঞানিক দৃষ্টিভঙ্গি প্রতিফলিত হয়। মানবসম্পদকে
পরিচালনা করাই হলাে এক ধরনের কলা। আর নিয়ােগ নির্বাচন, প্রশিক্ষণ ও উন্নয়ন সংক্রান্ত কাজকে সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের জন্য
বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি প্রয়ােগ করা হয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে বলা যায় যে, মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা হলাে কলা ও বিজ্ঞানের সংমিশ্রণ।
৪. নীতি নির্ধারক (Policy Determinant) : মানবসম্পদের কার্যসম্পাদনে মানবসম্পদ নীতি নির্ধারক হিসেবে কাজ করে।
সাধারণ ব্যবস্থাপনার নীতিনির্ধারণেও এর ভূমিকা রয়েছে। মানবসম্পদ বিভাগ ও সাধারণ বিভাগের নীতিমালার আলােকে
কর্মী নীতি প্রণয়ন করে।
৫. ধারাবাহিকতা (Continuity) : মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনার । ধারাবাহিকতা ব্যবস্থাপনার মনােভাব ও মনােবল বৃদ্ধিকরণ প্রভৃতি ব্যবস্থা গ্রহণ করে শ্রমিক কর্মীদের কাম্য ব্যবহার নিশ্চিত করা যায় ।
৬. অনুপ্রাণিতকরণ (Inspiring) : মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনার গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হলাে মানবসম্পদকে অনুপ্রাণিত করা। এ অনুপ্রেরণার বিষয়গুলাে হলাে সঠিক মজুরি প্রদান, পদোন্নতির ব্যবস্থা করা, কার্য ও পদ মূল্যায়নের ব্যবস্থা করা ইত্যাদি। কারণ শ্রমশক্তিকে সঠিকভাবে অনুপ্রাণিত করা গেলে তারা উদ্বেলিত হয়। আবার উদ্বেলিত শক্তির প্রভাবে মানবশক্তি সঠিক সময়ে সঠিক কার্যসম্পাদনে আগ্রহী হয়। সঠিক সংস্থাপন মানবসম্পদকে কাজে উৎসাহিত করে।
৭. সংস্থাপন (Establishing) : মানবসম্পদ নির্বাচন, সংগ্রহ এবং দক্ষতার বিবেচনায় কর্মে নিয়ােগ দেয়ার কাজটিই হলাে সংস্থাপন। একে মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনার অন্যতম। গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য বলে বিবেচনা করা হয়। কারণ, জনশক্তির কর্মী নীতি প্রণয়ন ধারাবাহিকতা হলাে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য, Dale Yoder এর মতে, “মানবসম্পদের নিয়ােগের মাধ্যমে উন্নয়ন, বণ্টন ব্যবহার এবং সংরক্ষণ প্রভৃতি কাজগুলাে আধুনিক সমাজে ধারাবাহিক এবং অনিবার্য প্রক্রিয়া।” G.R.Terry বলেছেন, “প্রতিদিনের কাজের ক্ষেত্রে মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনার প্রয়ােজন হচ্ছে মানবসম্পর্কের এক নিরবিচ্ছিন্ন সতর্কতা ও সজাগতা।”
৮. মূল্যায়ন (Evaluation) : উৎপাদনের যেসব উপাদান রয়েছে তার মধ্যে মানবসম্পদ অন্যতম। শ্রমিক-কর্মীরাই অন্যান্য উপাদানগুলােকে সক্রিয় করে তােলে। আর এরূপ সক্রিয়তা বজায় । রাখার জন্য মানবসম্পদকে সঠিকভাবে মূল্যায়ন করতে হয়।
৯. উন্নয়ন প্রচেষ্টা (Developing Efforts) : মানবসম্পদের উন্নয়নমূলক ব্যবস্থা মানবসম্পদ মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনার বৈশিষ্ট্যের পর্যায়ভুক্ত। এ ব্যবস্থাপনা কতিপয় নিয়মনীতির উপর অধিষ্ঠিত এসব নিয়মনীতি বাস্তবায়নে মানবসম্পদের উন্নয়নমূলক ব্যবস্থা। গ্রহণ করতে হয়। আবার মানবসম্পদের উন্নয়ন প্রাতিষ্ঠানিক |উন্নয়নের সহায়ক। সুতরাং উন্নয়ন প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকলে প্রতিষ্ঠানের অভীষ্ট লক্ষ্য অর্জনে অনেকটা সহজ হয়।
১০. গতিশীলতা (Dynamism) : সামাজিক পরিবেশে প্রতিষ্ঠানের সমুদয় কার্যাবলি সম্পাদিত হয়। যেহেতু সামাজিক পরিবেশ গতিশীল ও পরিবর্তনশীল সেহেতু কার্যাবলির ধরন ও গতিশীল ও পরিবর্তনশীল হবে। প্রতিষ্ঠানের কার্যাবলির পরিবর্তনশীলতার পরিপ্রেক্ষিতে মানবসম্পদ বিভাগের প্রকৃতিতেও
গতিশীলতার ছাপ পড়তে বাধ্য। সুতরাং মানবসম্পদ বিভাগের প্রকৃতিতেও এই গতিশীলতার বৈশিষ্ট্য পরিলক্ষিত হয়।
উপসংহার : উপরের আলােচনা থেকে বােঝা যায় যে, মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা সাধারণ ব্যবস্থাপনার একটি অংশ। এর কতিপয় স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্যই মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনার গুরুত্বকে আরও সমুজ্জ্বল করছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *